‘বাংলাদেশেও শাদাবের সঙ্গে একসাথে থেকেছি’

দুবাইয়ের মডেল আশরিনা সাফিয়ার নগ্ন ছবি ফাঁস করে দেওয়ার হুমকি দিয়ে বিতর্কে জড়িয়ে পড়েছেন পাক অলরাউন্ডার শাদাব খান

বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়েই প্রায় এক বছর ধরে তাঁদের মধ্যে সম্পর্ক রয়েছে। ২০১৯ সালের মার্চ মাস থেকে তাঁদের মধ্যে সম্পর্ক-এমনই অভিযোগ তুলেছেন আশরিনা।

তিনি জানিয়েছেন, ইংল্যান্ডে বিশ্বকাপ চলাকালীন শাদাবের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা বাড়ে। কিন্তু পাকিস্তানের এক সাংবাদিক তাঁদের সম্পর্কের কথা লিখলে শাদাব বিভিন্ন ফোন নম্বর থেকে আশরিনাকে ফোন করে নগ্ন ছবি ফাঁস করে দেওয়ার হুমকি দিতে থাকে।

সাফিয়া জানান, তিনি নাকি শাদাবের কারণে বাংলাদেশেও এসেছিলেন। তাঁর নানা আত্মত্যাগের পরও নাকি অন্য নারীর সঙ্গে সম্পর্ক গড়তেন শাদাব। তিনি বলেন, পনেরো হাজার আমেরিকান ডলার খরচ করে উড়োজাহাজে করে বিভিন্ন দেশে গিয়েছি শুধু শাদাব যেসব টি-টোয়েন্টি লিগে খেলে, সেখানে ওর খেলা দেখার জন্য, ওর সঙ্গে থাকার জন্য—সিপিএল গায়ানা, বাংলাদেশ ও দুবাই। প্রতিবার ও আমার সঙ্গে থাকার পর অন্য মেয়ের কাছে চলে যেত। আমি শাদাবকে সব সময় বিশ্বাস করেছি। কেননা, আমি ওকে যতই দোষ দিই না কেন, ও আমাকে ওর কাছে রাখার জন্য এমন কিছু নেই যা করেনি।

তিনি বলেন, কিন্তু একজন পাকিস্তানি সাংবাদিক আমাদের নিয়ে একটা প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। এরপর থেকেই শাদাব আমাকে হুমকি দিচ্ছে বিভিন্ন নম্বর থেকে এই বলে যে আমি যদি আমাদের সম্পর্কের কথা প্রকাশ করি, তাহলে সেও ওর কাছে থাকা আমার সব নগ্ন ছবি ফাঁস করে দেবে।

আশরিনা আরও বলেন, আমি এত দিন এই লোককে বিশ্বাস করে গেছি, যা বলেছে অজ্ঞাতসারে মেনে নিয়েছি। কিন্তু আর নয়। এটা পোস্ট করে আমার কোনো লাভ হবে না, কিন্তু এই পোস্টের মাধ্যমে যদি একটা মেয়েরও উপকার হয়, তবে সেটাই সবচেয়ে বড় প্রাপ্তি।

কিছুদিন আগে শাহীন শাহ আফ্রিদি ও ইমাম–উল–হক জড়িয়েছিলেন এই কেলেঙ্কারিতে। এবার এই তালিকায় নাম লেখালেন লেগ স্পিনার শাদাব খান। তবে শাদাবের তরফ থেকে এখনো কোনো প্রতিক্রিয়া আসেনি।