বাংলাদেশের যুবাদের কঠোর শাস্তি চান কপিল দেব

যুব বিশ্বকাপের ফাইনাল শেষে অপ্রীতিকর এক ঝামেলায় জড়িয়ে পড়ে বাংলাদেশ ও ভারতের ক্রিকেটাররা। প্রথমে বাকবিতণ্ডা হলেও একপর্যায়ে তা গড়ায় হাতাহাতিতে। আর এটাই পছন্দ হয়নি ভারতের সাবেক অধিনায়ক কপিল দেবের।

এই ঘটনায় দুই দেশের পাঁচ ক্রিকেটারকে শাস্তি দিয়েছে আইসিসি। তবে কপিল চান দুই দেশের বোর্ডও যেন তাদের শাস্তি দেয়।

ভারতীয় অধিনায়ক এক অনুষ্ঠানে বলেন, কে বলেছে ক্রিকেট ভদ্রলোকের খেলা? এটা এখন ভদ্রলোকের খেলা নয়, ছিল বলা যায়। যুবা ক্রিকেটারদের মধ্যে যা হয়েছে তা এককথায় ভয়াবহ। দুই দেশের ক্রিকেট বোর্ডকে অবশ্যই তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে যাতে ভবিষ্যতে আর এমনটা না ঘটে।

এরপর নিজ দেশের যুবাদের আচরণে ক্ষুব্ধ কপিল বলেন, আপনি যখন ম্যাচ হেরে যান, এরপর আবার মাঠে ফিরে কারও সঙ্গে লড়াই করার অধিকার আপনার নেই। এজন্য অধিনায়ক, ম্যানেজার এবং যারা মাঠের বাইরে ছিলেন তাদেরও দায় আছে। ১৮ বছর বয়সী যুবকদের অনেক সময় এসব বুঝতে অসুবিধা হতে পারে। কিন্তু আপনি যদি দলের ম্যানেজার হোন, তাহলে এমন পরিস্থিতি সামলানো আপনার দায়িত্ব।

এর আগেও যুবাদের বিরুদ্ধে নিজ দেশের বোর্ডের তরফ থেকেও সাবেক ভারতীয় অধিনায়ক তাদের এমন আচরণের জন্য শাস্তি চেয়েছেন। ভারতের এক গণমাধ্যমকে কপিল দেব বলেন, আমি দেখতে চাই দৃষ্টান্ত স্থাপনের জন্য বোর্ড (বিসিসিআই) খেলোয়াড়দের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করবে। ক্রিকেট প্রতিপক্ষকে অপমান করার বিষয় নয়। আমি নিশ্চিত, যুবা তারকাদের শাস্তি দেওয়ার এটাই যথেষ্ট কারণ রয়েছে।

কেবল কপিল দেব নন, ভারতীয় যুবাদের আচরণে ক্ষুব্ধ টিম ইন্ডিয়ার আরেক সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আজহারউদ্দীনও।