শান্তর সেঞ্চুরিতে চালকের আসনে বাংলাদেশ

ক্যান্ডিতে আজ শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের প্রথম টেস্টে দুর্দান্ত ব্যাট করেছে বাংলাদেশ। প্রথম দিন শেষে চালকের আসনে রয়েছে বাংলাদেশ।

যদিও ব্যাট হাতে নেমে শুরুতেই ফেরেন ওপেনার সাইফ হাসান। ৬ বলে মোকাবিলা করে ফার্নান্দোর বলে আউট হন। রানের খাতা শূন্য রেখেই। কিন্তু সাইফের আউট হওয়া নিয়ে স্বাগতিকদের উল্লাস মাটিয়ে মিশিয়ে দেন ড্যাশিং ওপেনার তামিম ইকবাল। টেস্টকে ওয়ানডে স্টাইলে খেলে মাত্র ৫২ বলে ক্যারিয়ারের ২৯তম হাফসেঞ্চুরি তুলে নেন তামিম।

অপরপ্রান্তে সতর্ক-সাবধানী হয়ে খেলতে থাকেন নাজমুল হোসেন শান্ত। দ্বিতীয় উইকেটে ১৪৪ রানের দুর্দান্ত জুটি গড়েন তামিম-শান্ত।

এ সময় ৯০ রানে অপরাজিত ছিলেন তামিম। আর শান্ত ১২৭ বলে পূরণ করেছিলেন তার ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় অর্ধশতক।

তামিমের সেঞ্চুরির অপেক্ষায় ছিল ক্রিকেটপ্রেমীরা। কিন্তু সবাইকে হতাশ করে দিয়ে নার্ভাস নাইনটিতে আউট হয়ে গেলেন তামিম। বিশ্ব ফার্নান্ডোর বলে লাহিরু থিরিমান্নের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরেন তামিম।

তামিম আউট হয়ে গেলে শান্তর সঙ্গী হন অধিনায়ক মোমিনুল হক। এবার মোমিনুলকে নিয়ে দুর্দান্ত জুটি গড়েন শান্ত। সিনিয়র সতীর্থ তামিমের ভুল থেকে মাঠেই শিক্ষা নিয়ে ঠিকই তিন অংকের ম্যাজিক ফিগারে পৌঁছে গেলেন শান্ত।

২৩৬ বলে শতক পূরণ করলেন শান্ত। টেস্ট ক্যারিয়ারে প্রথম সেঞ্চুরির মুখ দেখলেন এই টপঅর্ডার ব্যাটসম্যান।

শান্তর শতকের পর পর হাফসেঞ্চুরির দেখা পান মোমিনুলও। ম্যাচের ৭৮তম ওভারে ১১৭ বলে অর্ধশতক পূরণ করেন তিনি।

অপরাজিত থেকেই দিন শেষ করেছে শান্ত-মোমিনুল জুটি।

৯০ ওভার শেষে তামিমের পর আর কোনো উইকেট না হারিয়ে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৩০২ রান। শান্ত ২৮৮ বল খেলে ১২৬ রানে এবং মোমিনুল ১৫০ বল খেলে ৬৪ রানে অপরাজিত থাকেন। অর্থাৎ তৃতীয় উইকেটে শান্ত-মোমিনুল জুটির সংগ্রহ ১৫০ রান।

আগামীকাল দ্বিতীয়দিনে এ সংগ্রহকে কতদূর টেনে নেয় এ জুটি তাই দেখার বিষয়।

সংক্ষিপ্ত স্কোর (১ম দিন শেষে)

টস : বাংলাদেশ

বাংলাদেশ ১ম ইনিংস : ৩০২/২ (৯০ ওভার)
শান্ত ১২৫*, তামিম ৯০, মুমিনুল ৬৪*