‘আমাদের ফিনিশার ও তার অস্ত্রগুলো’


ম্যাচের শুরুতেই ব্যাঙ্গুলুরুকে চেপে ধরেন সাকিব আল হাসান। উইকেট না পেলেও সে সুফল ভোগ করেছেন আরেক স্পিনার সুনীল নারাইন। প্রথমে রান করতে না পারা কোহলির দল ব্যাট চালাতে গিয়ে আটকা পড়ে মাত্র ১৩৮ রানে।

এরপর মাঠে নেমে সহজ জয়ের দিকেই ছিল কলকাতা। তবে সিরাজের ১৮তম ওভারে সব পাল্টে যায়। দুই উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে নাইটরা। শেষ ওভারে কলকাতা নাইট রাইডার্সের দরকার ছিল ৭ রান। দায়িত্বটা এসে পড়ে সাকিব আল হাসানের কাঁধে।

আর ডেনিয়েল ক্রিশ্চিয়ানের প্রথম বলেই দারুণ এক শটে চার হাঁকান সাকিব। কলকাতার জন্যও কাজটা সহজ করে দেন। পরের বলে নেন সিঙ্গেল। এরপর মরগান এক রান নিলে আবার স্ট্রাইক পান সাকিব। ঠাণ্ডা মাথায় সিঙ্গেল নিয়ে বিজয়ীর বেশে ছাড়েন মাঠ।

বেশি বল খেলার সুযোগ পাননি সাকিব। ৬ বলে খেলে অপরাজিত ৯ রান করেছেন। কিন্তু সাকিবের এই ৯ রানের ছোট্ট ইনিংসই মহামূল্যবান বাংলাদেশি ক্রিকেটপ্রেমীদের কাছে।

কলকাতার জয় ছাপিয়েও আলোচনা সে কথা। আর বিষয়টি বেশ ভালোই জানা কলকাতা নাইট রাইডার্সের ফেসবুক পেজ এডমিনের। সাকিবকে মি. ফিনিশার বলে প্রশংসা করেছে তারা।

ম্যাচ জয়ের পরই সাকিবের থাম্বসআপে হাস্যজ্জ্বল ছবি ও তার ব্যাট-বল, প্যাড এবং হেলমেটের ছবি আপলোড করেছে কেকেআরের ফেসবুক পেজ।  ক্যাপশনে লিখেছে, আমাদের ফিনিশার ও তার অস্ত্রগুলো।

পোস্টটি বেশ মনে ধরেছে সাকিব ফ্যানদের। পোস্টের পর এক ঘণ্টা পার হতে না হতেই প্রায় এক লাখ রিয়েক্ট জমা পড়েছে। যার বেশি অংশটাই লাভ রিয়েক্ট।

ছবি দুটির তলায় মন্তব্য জমা পড়েছে প্রায় ৮ হাজার। প্রায় সব মন্তব্যই সাকিবের ভূয়সী প্রশংসায় করা।

অনেকেই একমত যে, মি. অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানের বুদ্ধিদীপ্ত ও সাহসী ব্যাটিংয়ে শেষ ওভারে ম্যাচ জিতেছে কলকাতা।