৬ দিনের বৃষ্টিতে মহারাষ্ট্রে নিহত ৩৮, আকস্মিক বন্যা

টানা ছয়দিনের ভারী বর্ষণে ভারতের মহারাষ্ট্রে অন্তত ৩৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। সেই সাথে বাধ ভেঙে দেখা গিয়েছে আকস্মিক বন্যা।

ছ’দিন একনাগাড়ে বৃষ্টিতে বিপর্যস্ত মুম্বাইসহ গোটা মহারাষ্ট্র। এখনও পর্যন্ত সেখানে ৩৮ জন প্রাণ হারিয়েছেন, যার মধ্যে উত্তর মুম্বাইয়ের মালাডে দেওয়াল ধসে পড়ে মৃত্যু হয়েছে ২৩ জনের।

বুধবার সকালে ধ্বংসস্তূপ থেকে পাপ্পু গমেশ শাহ নামে এক ব্যক্তির দেহ উদ্ধার হয়েছে। এই ধরনের বাড়ি বা দেওয়াল ভেঙে পড়ার ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ৮০ জন আহত হয়েছেন সেখানে। বিভিন্ন এলাকায় জলবন্দি হয়ে রয়েছেন বহু মানুষ।

প্রবল বৃষ্টিতে ভাঙল মঙ্গলবার রাতে রত্নগিরি জেলার তিওয়ারে বাঁধ ভেঙে যাওয়ায় বহু গ্রামে আকস্মিক বন্যা দেখা দেয়। ভেসে যায় বাড়ি। এখন পর্যন্ত ছয়জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম। আহতের সংখ্যাও প্রচুর। আশঙ্কা মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে ধারণা।

প্রবল বৃষ্টির জেরে মুম্বাইতে ইতিমধ্যেই বাতিল হয়েছে ২০৩টি উড়ান৷ যা পরিস্থিতি তাতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ আশংকা করছে, বিমানবন্দরের মূল রানওয়ে ফের চালু হতে এখনও ৪৮ ঘণ্টা লাগবে৷ সোমবার রাত পৌনে ১২টা নাগাদ অবতরণের সময়ে রানওয়েতে পিছলে গিয়েছিল জয়পুর থেকে আসা একটি স্পাইসজেটের বিমান। তার পর থেকে বন্ধ রয়েছে ওই রানওয়ে৷ রানওয়ের শেষপ্রান্তে আটকে রয়েছে ওই স্পাইসজেটের বিমানটি। সেটিকে সরাতে ১৫০ মিটারের একটি র‌্যাম্প তৈরি করা হয়েছে।

যে রেল পরিবহণের উপর নির্ভরশীল গোটা মুম্বাই, লাগাতার বৃষ্টিতে তার উপরও প্রভাব পড়েছে। এ দিন সকালে চার্চগেট থেকে ভিরার পর্যন্তই শুধুমাত্র ট্রেন চলাচল করেছে। মধ্য এবং পশ্চিম রেলের বহু দূরপাল্লার ট্রেন বাতিল করা হয়।

আবহাওয়া দফতর বলছে, বুধবারও সেখানে ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানানো হয়েছে। সেই সঙ্গে বলা হয়েছে, এ দিন দুপুর ১২টা ৩৫ মিনিটে উপকূলবর্তী এলাকায় ৪.৬৯ মিটার উচ্চতায় ঢেউ আছড়ে পড়তে পারে।