নেপালে বন্যা-ভূমিধসে নিহত ১৫

নেপালের সরকার শুক্রবার জানিয়েছে, দেশটিতে ব্যাপক বৃষ্টিপাতের কারণে সৃষ্ট বন্যা ও ভূমিধসের ঘটনায় কমপক্ষে ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া আরও ছয়জন নিখোঁজ রয়েছে বলেও জানিয়েছে তারা।

গত বৃহস্পতিবার থেকে নেপালের ৭৭টি জেলার মধ্যে ২০টি জেলায় ভারী বৃষ্টিপাত হচ্ছে। এছাড়া দেশটির পাহাড়ি এলাকা ও দক্ষিণাঞ্চলীয় সমভূমিতে ব্যাপক পরিমাণে বৃষ্টিপাত হচ্ছে।

নেপালের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে সৃষ্ট তাৎক্ষণিক বন্যা ও ভূমিধসের ঘটনায় ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া ছয়জন নিখোঁজ রয়েছে এবং আহত হয়েছে ১৩ জন।

রাজধানী কাঠমান্ডুতে একটি বাড়ির দেয়াল ধসে পড়লে একই পরিবারের তিনজনের ‍মৃত্যু হয়। এদিকে টেলিভিশনের ফুটেজে দেখা গেছে, কাঠমান্ডুর বিভিন্ন রাস্তা প্লাবিত হওয়ার পর বন্যা কবলিত ঘরবাড়ি থেকে রাবারের নৌকায় করে বাসিন্দাদের সরিয়ে নিচ্ছে পুলিশ। অনেক জায়গায় মানুষজনকে কোমর সমান পানির মধ্য দিয়ে হেঁটে হেঁটে মাথায় করে নিজেদের জিনিসপত্র নিয়ে অন্যত্র সরে যেতে দেখা গেছে।

নেপালের সেনাবাহিনীর মুখপাত্র বিজ্ঞান দেব পান্ডে বলেছেন, আমরা এখনও পর্যন্ত ১৫০ জনকে অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে গেছি এবং অন্যান্য জায়গায় আমাদের টিম রয়েছে।

দেশটির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ভারতের বিহার রাজ্যের ভেতর দিয়ে প্রবাহিত হওয়া নেপালের পূর্বাঞ্চলে অবস্থিত কোশি নদীর পানি বিপদসীমা অতিক্রম করেছে। নেপালের আবহাওয়া অফিস বলছে, আরও দুই-একদিন ভারী বৃষ্টিপাত হতে পারে। তাই বাসিন্দাদের সতর্ক থাকা পরামর্শ দিয়েছে তারা।