পাল্টা হামলায় পাকিস্তানের ২০ সেনা-জঙ্গি নিহত: ভারত

পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর গুলিতে ভারতের দুই সেনা জওয়ানসহ তিনজন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় পাকিস্তানে পাল্টা হামলা চালিয়েছে ভারত। তাতে পাকিস্তানের সেনা ও জঙ্গিসহ মোট ২০ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে দাবি করেছে ভারত।

ভারতীয় সেনাবাহিনীর দাবি, সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘনের জবাব দিতে পাক অধিকৃত কাশ্মীরে পাল্টা গোলাবর্ষণ করে ভারত। ভারতের গোলাবর্ষণে নিয়ন্ত্রণরেখার কাছে থাকা অন্তত তিনটি পাক জঙ্গি ঘাঁটি ধ্বংস হয়েছে। পাক সেনা ও জঙ্গি মিলিয়ে নিহত অন্তত ২০ জন।

ঘটনার সূত্রপাত শুক্রবার সন্ধ্যায়। ভারতীয় সেনার বক্তব্য, জম্মুর কাঠুয়ায় মনইয়ারি-চোরগলি এলাকা লক্ষ্য করে পাক রেঞ্জার্স মর্টার ছুড়লে আহত হন সাদিক আলি নামে এক ব্যক্তি। এর পরে আজ ভোর রাত থেকেই কুপওয়ারার তংধার সেক্টরে বিনা প্ররোচনায় গুলি-গোলা চালাতে শুরু করে পাকিস্তান। সেনার সন্দেহ, সম্ভবত জঙ্গি অনুপ্রবেশ ঘটাতেই ওই হামলা চালানো হয়।

পাক হামলায় নিহত হন পদমবাহাদুর শ্রেষ্ঠ ও জামিলকুমার শ্রেষ্ঠ নামে দুই সেনা। মৃত্যু হয় মহম্মদ সিদিক নামে তংধার এলাকার এক গ্রামবাসীরও। জবাবে তংধারের উল্টো দিকে পাক অধিকৃত কাশ্মীরের নীলম উপত্যকায় থাকা জঙ্গি ঘাঁটি লক্ষ্য করে প্রত্যাঘাত করে ভারতীয় সেনা। মর্টারের পাশাপাশি বফর্সের মতো কামানও ব্যবহার করে ভারত।

ভারতীয় সেনাবাহিনীর মতে, কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা লোপের পর থেকেই  হামলা বাড়িয়ে দিয়েছে পাকিস্তান। পরিসংখ্যানই বলছে, তার পর থেকে ৬০০ বার সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘন করেছে পাক বাহিনী।

তবে ভারতের ঠিক উল্টো দাবি পাকিস্তানের। তারা বলছে ভারতের হামলায় তাদের এক সেনা নিহত হয়েছে। এছাড়া আজাদ কাশ্মীরের স্থানীয় ৬ বাসিন্দা নিহত হয়েছে। ভারত বিনা প্ররোচণাতেই এ হামলা চালিয়েছে।