উত্তেজনা বাড়িয়ে শক্তিশালী মিশাইল ছুঁড়ল পাকিস্তান

গতকালই ডুবোজাহাজ থেকে পরমাণুবাহী ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালানোর ঘোষণা দেয় ভারত। তবে এখনো তারা পরীক্ষা না চালালেও প্রতিবেশী চিরবৈরি দেশ পাকিস্তান সাগরের তলদেশ থেকে মিসাইলের সফল পরীক্ষা চালিয়েছে।

এর ফলে দুই দেশের মধ্যে স্নায়ুযুদ্ধ শুরু হয়েছে। চলছে অস্ত্রের প্রতিযোগিতাও।

ভূমি থেকে সাগরে নিক্ষেপযোগ্য মিসাইলের পরীক্ষা চালিয়েছে পাকিস্তান। ৭০০ কিলোমিটার অতিক্রম করে নির্ভুল নিশানায় আঘাত হানতে সক্ষম এই ক্ষেপনাস্ত্র একেবারে দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি করেছে পাকিস্তানের বিজ্ঞানীরা।

জানা গেছে, আরব সাগরের গভীরে এই মিসাইলের পরীক্ষা চালানো হয়েছে। সে দেশের নৌবাহিনীর প্রধান অ্যাডমিরাল মাহমুদ আব্বাসি নিজেই ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার বিষয়টি তদারকি করেছেন বলে এক্সপ্রেস ট্রিবিউন তাদের প্রকাশিত খবরে জানিয়েছে।

একেবারে দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি যরব নামের ক্ষেপণাস্ত্রটি লক্ষ্যবস্তুতে নিখুঁতভাবে আঘাত হেনেছে বলে পাকিস্তান নৌবাহিনীর তরফে জানানো হয়েছে। নির্মাণ থেকে পরীক্ষা পর্যন্ত সকল পর্যায় সুন্দরভাবে সম্পন্ন করার জন্য বিজ্ঞানী ও ইঞ্জিনিয়ার সহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন পাকিস্তানের নৌবাহিনী প্রধান।

অ্যাডমিরাল মাহমুদ আব্বাসি জানিয়েছেন, নয়া ক্ষেপণাস্ত্রটির পাল্লা ৭০০ কিলোমিটার। সাগরে শত্রুর জাহাজ ধ্বংসের লক্ষ্যেই এটি তৈরি করা হয়েছে।

কাশ্মীর নিয়ে অনেক বছর ধরেই ভারত ও পাকিস্তানের সাথে দ্বন্দ্ব লেগে আছে। তবে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে তা চরম আকার ধারণ করে। দুই দেশ বেশ কয়েকবার খণ্ডযুদ্ধেও জড়িয়ে পড়ে। এসবের প্রেক্ষিতেই দুই দেশ তাদের অস্ত্র ভাণ্ডার সমৃদ্ধে কাজ চালাচ্ছে।