২০০ শিশু-কিশোরীকে ধর্ষণ-যৌন নির্যাতন, গ্রেপ্তার চিকিৎসক

অন্তত ২০০ শিশু ও কিশোরীকে ধর্ষণ এবং যৌন হেস্তার অভিযোগে এক চিকিৎসককে আটক করেছে ফ্রান্সের পুলিশ।

ওই চিকিৎসকের নাম জয়েল লে সৌসামেক। প্যারিসের একটি বেসরকারি হাসপাতালে সেবা দিতেন তিনি। সেখানে চিকিৎসা নিতে আসারাই তার যৌন লালসার শিকার হতো। জয়েলের একটি ডায়েরি থেকে এমন ২০০ শিশুর নাম পাওয়া গেছে। যাদের তিনি যৌন নির্যাতন করেছেন।

জয়েল লে সৌসামেকের বিরুদ্ধে প্রথম অভিযোগটি জমা পড়ে ২০১৭ সালে। ওই সময়ে অভিযুক্ত চিকিৎসকের বিরুদ্ধে ছ’বছরের শিশুকন্যাকে ধর্ষণের অভিযোগ আনে স্থানীয় একটি পরিবার। এই মামলাটির তদন্ত চলছিল। আর এই মামলার তদন্ত চালাতে গিয়েই হতবাক হয়ে গিয়েছেন পুলিশ আধিকারিকেরা।

পুলিশ সূত্রে খবর, একের পর এক শিশুদের দীর্ঘকাল ধরে যৌন হেনস্থা চালিয়ে গিয়েছিল এই অভিযুক্ত চিকিৎসক। যেসব শিশুকে তিনি যৌন নির্যাতন করতেন তা নিজের ডায়েরিতে লিখে রাখতেন। এমনকি তাদের নাম-পরিচয় পর্যন্ত। অনেককে তিনি চিকিৎসা নিয়ে যাওয়ার পরও বিভিন্ন সময় হেনস্তা করেছেন।

ইতিমধ্যেই পুলিশ যৌন হেনস্থার শিকার প্রায় ১৮০ জন নিপীড়িতার বয়ান নিয়েছে। ৩০ বছর ধরে এই অপকর্ম চালানোর জেরে সে দেশের বহু মানুষই তাঁকে ‘ফ্রান্সের সিরিয়াল রেপিষ্ট’ বলে আখ্যা দিয়েছেন।

আদালতকে পুলিশ জানিয়েছে এখনও পর্যন্ত প্রায় ১৮১ জন ওই চিকিৎসকের বিরুদ্ধে তাদের ছোটবেলায় ঘটে যাওয়া যৌন হেনস্থার কথা জানিয়েছেন।