নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের প্রতিবাদে উত্তাল ভারত

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের প্রতিবাদ উত্তাল হয়ে উঠেছে আসাম। বিলের প্রতিবাদে আসাম জুড়ে চলছে বনধ। তার পাশাপাশি ত্রিপুরা ও অন্যান্য উত্তরপূর্বাঞ্চলের রাজ্যেও প্রবল বিক্ষোভ শুরু হয়েছে।

মঙ্গলবার সকাল থেকে অসমের ডিব্রুগড়, জোড়হাটের বিভিন্ন এলাকায় রাস্তায় নেমে প্রতিবাদ-বিক্ষোভে সোচ্চার হন সাধারণ মানুষ। বঙ্গাইগাঁওয়ের বিভিন্ন এলাকাতেও সকাল থেকে রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে চলে অবরোধ।

বিভিন্ন এলাকায় শুনশান রাস্তাঘাট, বন্ধ দোকানবাজার, বন্ধ যানবাহন চলাচলও। বনধকে ঘিরে বিক্ষিপ্ত অশান্তির মাঝেই ডিব্রুগড়ে সশস্ত্র বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন আলফা (স্বাধীনতা)-এর পতাকা উড়তে দেখা যায়। এতে আরও চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। আশঙ্কা, আলফা (স্বাধীনতা) নাশকতা চালাতে পারে। এর জেরে চিন্তিত প্রশাসন।

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের প্রতিবাদে মঙ্গলবার অসমে ১১ ঘণ্টার বনধ নর্থ-ইস্ট স্টুডেন্ট অর্গানাইজেশন বা এনইএসও-র। বনধকে সমর্থন আরও ১৬টি সংগঠনের। বনধের সমর্থনে এসএফআই, ডিওয়াইএফআই, এআইডিডব্লিউএ, এআইএসএফ, এআইএসএ এবং আইপিটিএ-র মত সংগঠন।

অশান্তির আশঙ্কায় মঙ্গলবার আসামের একাধিক বিশ্ববিদ্যালয় পরীক্ষা বাতিলের সিদ্ধান্ত নেয়। বনধ ঘিরে অপ্রীতিকর পরিস্থিতির মোকাবিলায় আগেভাগেই সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেয় প্রশাসন। লখিমপুর ও সোনিতপুর জেলায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়। প্রশাসনের তরফে খোলা হয় হোয়াটসঅ্যাপ হেল্পলাইন।

বিলের বিরোধিতায় উত্তপ্ত হয়ে গিয়েছে অসম, ত্রিপুরা সহ উত্তর পূর্বাঞ্চলের রাজ্যগুলি। বিভিন্ন রাজ্যে বিজেপি ক্ষমতাসীন একাধিক রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরাও নাগরিকত্ব সংশোধনীর বিরুদ্ধে গিয়েছেন।

সোমবার রাতে লোকসভায় পাস হয়েছে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল৷ তুমুল হইচইয়ের মধ্যে লোকসভায় পাস হয় বিল৷ বিল পেশের পরই প্রতিবাদে সোচ্চার হন বিরোধী সাংসদরা৷ সোমবার দিনভর লোকসভায় নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে চলে বিতর্ক। নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল ভারতের বহুত্ববাদ বিরোধী বলেও সওয়াল করে বিরোধী দলগুলি।