হিন্দু হলে জরিমানা ১০০, মুসলিম হলে ২১ হাজার

এবার আরও একটি নতুন পদক্ষেপ নিয়েছে ভারত সরকার। ভিসা শেষে ভারতে অবস্থান করলে হিন্দুদের চেয়ে কমপক্ষে দুইশো গুণ বেশি জরিমানা গুনতে হবে মুসলিমদের। ভারতের এমন পদক্ষেপকে ধর্মীয় বৈষম্য হিসেবে উল্লেখ করেছে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কার্যালয়।

নতুন নিয়ম অনুযায়ী, বাংলাদেশে সংখ্যাগরিষ্ঠ মুসলিম কোনো ব্যক্তি ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়ার পরেও যদি ভারতে অবস্থান করেন তবে তাকে একজন হিন্দু ব্যক্তির চেয়ে কমপক্ষে দুইশো গুণ বেশি জরিমানা দিতে হবে।

এফআরআরও-এর ওয়েবসাইটে প্রকাশিত নতুন নীতিমালায় বলা হয়েছে যে, পাকিস্তান, বাংলাদেশ ও আফগানিস্তানের সংখ্যালঘু হিন্দ্র সম্প্রদায়ের জন্য দুই বছরের বেশি সময় অবস্থান করলে ৫০০ রুপি, ৯১ দিন থেকে দুই বছর অবস্থান করলে ২০০ রুপি এবং ৯০ দিন অবস্থান করলে ১০০ রুপি জরিমানা করা হবে।

অপরদিকে, ভারতে ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়ার পরও অবস্থানকারী ব্যক্তি যদি সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের না হন তবে তাকে ডলারে জরিমানা প্রদান করতে হবে। সেক্ষেত্রে ওই একই সময়ে অবস্থানের জন্য তাকে জরিমানা দিতে হবে যথাক্রমে ৫০০ ডলার ( ৩৫০০০ রুপি), ৪০০ ডলার (২৮০০০ রুপি) এবং ৩০০ ডলার (২১০০০ রুপি)।

এক বাংলাদেশি কর্মকর্তা দ্য হিন্দুকে বলেন, এর মানে হচ্ছে যদি বাংলাদেশি হিন্দু ক্রিকেটার লিটন দাস ভিসার মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার পরেও ভারতে একদিন অবস্থান করেন তবে তাকে ১শ রুপি জরিমানা গুনতে হবে। কিন্তু একই ঘটনা যদি সাইফ হাসানের সঙ্গে হয় তবে তাকে ২১ হাজার রুপি জরিমানা দিতে হবে। ইতোমধ্যেই ভারতে ২১ হাজার রুপি জরিমানা দিয়েছেন সাইফ হাসান।