চীন-যুক্তরাষ্ট্র ‘যুদ্ধ’ ইতির ইঙ্গিত

আমেরিকার সঙ্গে প্রায় দু’বছরের শুল্ক-যুদ্ধে দাড়ি টানার আভাস দিয়েছে চীন।

দেশে ঢোকা কয়েকটি মার্কিন পণ্যসামগ্রীর উপর বাড়তি শুল্কের বোঝা আপাতত না চাপানোর কথা জানানো হয়েছে বেইজিংয়ের তরফে। ১৫ ডিসেম্বর থেকে কয়েকটি মার্কিন পণ্যের উপর বাড়তি ১০ এবং ৫ শতাংশ শুল্কের বোঝা চাপানোর কথা ভেবেছিল বেইজিং।

কিন্তু আপাতত তা স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে এ দিন চীনের তরফে জানানো হয়েছে। রবিবার চীনের অর্থমন্ত্রণালয় জানিয়েছে, যে মার্কিন পণ্যগুলির উপর বাড়তি শুল্কের বোঝা চাপানোর সিদ্ধান্ত স্থগিত রাখা হয়েছে, তাদের অন্যতম গাড়ির বিভিন্ন অংশ বা গাড়ির যন্ত্রাংশ।

তবে শুল্ক-যুদ্ধে কিন্তু চীন আগবাড়িয়ে দাঁড়ি টানল না। বরং প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের আমেরিকাই আগে সে দেশে ঢোকা চীনা পণ্যসামগ্রীর উপর বাড়তি শুল্কের বোঝা না চাপানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। বেইজিংয়ের এ দিনের সিদ্ধান্ত তারই পরিপূরক।

চীনের বাণিজ্যমন্ত্রক শুক্রবার জানায়, শুল্ক-যুদ্ধ নিয়ে আমেরিকার সঙ্গে সমঝোতায় পৌঁছনো গিয়েছে। ঠিক হয়েছে, চীনে ব্যবসা করতে আসা মার্কিন সংস্থাগুলির মেধাসত্ত্ব রক্ষা করতে যা যা করণীয় বেইজিং সেটা করবে। আর চীনে ঢোকা মার্কিন পণ্যসামগ্রীর উপর শুল্কের বোঝাও ধীরে ধীরে কমানো হবে।

তবে এ ব্যাপারে এখনও দু’দেশের মধ্যে কোনও চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়নি।