সিএবি নিয়ে মুখ খুললেন মোদি

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরোধিতায় উত্তাল ভারতের উত্তর-পূর্বের পরিস্থিতি। এ নিয়ে দীর্ঘসময় চুপ থাকার পর অবশেষে মুখ খুলেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

রবিবার দুমকায় বিজেপির জনসভায় মোদি বলেন, শরনার্থীদের সম্মান জানাতেই সরকার এই আইন এনেছে। লোকসভা ও রাজ্যসভা দুই কক্ষেই বিলটি পাস হয়েছে। এই আইনে দরিদ্র শরণার্থীদের সুবিধা হবে।

তিনি বলেন, যারা আইনের বিরোধিতা করে আগুন ধরাচ্ছেন তাদের পোশাকেই পরিচয় তারা তারা। বিজেপি দেশের লোকের ভালো চায়। এর জন্য বিজেপি ও সরকার দায়বদ্ধ।
নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন জারি হওয়ার আগে থেকেই প্রবল উত্তপ্ত উত্তর পূর্ব ভারত। আসামে ও ত্রিপুরা-তে সেনা নামানো হয়। আসামে প্রবল বিক্ষোভের কারণে গুলিতে ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। আর আইন জারি হতেই অগ্নিগর্ভ পশ্চিমবঙ্গ।

গত ২৪ ঘণ্টায় পশ্চিমবঙ্গের একের পর এক স্টেশনে আগুন. করানো, ট্রেনে আগুন, বাস পোড়ানো হয়েছে। আইনের বিরোধিতায় সংখ্যালঘু এলাকায় ক্ষোভ তুঙ্গে়। আইনে বলা রয়েছে, প্রতিবেশী বাংলাদেশ, পাকিস্তান, আফগানিস্তান থেকে আসা অ-মুসলিমদের সরাসরি নাগরিক করা হবে। আর আইনের বিরোধিতায় উত্তেজিত আন্দোলনকারীদের অভিযোগ, এই আইনের বলে মুসলিমদের দ্বিতীয় শ্রেণির নাগরিক করা ও দেশ থেকে বিতাড়িত করার ছক করেছে বিজেপি।

মোদি বলেন, সংবিধানের ৩৭০ ধারা বাতিল করা হোক বা রাম জন্মভূমি নিয়ে সুপ্রিম কোর্ট— ভারতীয় দূতাবাসের বাইরে পাকিস্তান যেমন বিক্ষোভ দেখিয়েছে ঠিক তেমনটাই করছে কংগ্রেস। আমি আসামের ভাইবোনদের অভিনন্দন জানাতে চাই যারা হিংসা ছড়াচ্ছে তাদের থেকে সরে থাকার জন্য। তাঁরা তাঁদের বক্তব্য তুলে ধরেছেন শান্তিপূর্ণ ভাবে।