বিয়ের ২ সপ্তাহ পর ইমাম জানলেন তার স্ত্রী পুরুষ!

মসজিদে দেখা হয়েছিল দু’জনের। ইমাম জানিয়েছেন যে তিনি বিয়ের জন্য পাত্রী খুঁজছিলেন। সেই সময়ে এই ব্যক্তি সেখানে আসেন ও নিজেকে মহিলা বলে পরিচয় দেন। তার চোখ দেখেই ইমামের পছন্দ হয়ে গিয়েছিল।

কারণ তার পরনে ছিল বোরকা। শুধু তার চোখই দেখা যাচ্ছিল। এরপর বিয়ের সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেন তারা। বিয়ের আগে চেহারা দেখাতে ইচ্ছুক ছিলেন না ইমামের স্ত্রী। তাই কোনওভাবে তার শরীর দেখার সুযোগ হয়নি ইমামের।

বিয়ের পর স্ত্রী জানালেন তিনি ঋতুমতী। তাই বিয়ের দু’সপ্তাহ পর্যন্ত একে অপরকে ছুঁয়ে দেখেননি। বিয়ের পরপর ইমামের প্রতিবেশী অভিযোগ করেন যে হিজাব পরে ইমামের স্ত্রী তার বাড়িতে ঢুকে চুরি করেছেন। থানায় অভিযোগও জানান তিনি।

এরপর পুলিশ এসে আটক করে তাকে। থানায় এলে মহিলা পুলিশ তার তল্লাশি করেন এবং তখনই আঁতকে ওঠেন মহিলা পুলিশকর্মী। তিনি চিৎকার করতে থাকেন এবং জানিয়ে দেন যে যিনি স্ত্রীর বেশে হিজাব পরে রয়েছেন, তিনি আসলে মহিলা নন, পুরুষ! খবর জানাজানি হতেই চাঞ্চল্য তৈরি হয়।

ঘটনাটি ঘটেছে উগান্ডায়৷ ইমামের নাম মহম্মদ মুতুবা।