কাশ্মীর: জাতিসংঘের প্রস্তাবকেও পাত্তা দিল না ভারত

জম্মু-কাশ্মীর নিয়ে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে মধ্যস্থতা করার প্রস্তাব দিয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। একাধিক বার তাঁর সেই প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছে ভারত। এ বার জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিয়ো গুতেরেসের মধ্যস্থতার প্রস্তাবও খারিজ করল দিল্লি।

রবিবার পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মহম্মদ কুরেশির সঙ্গে বৈঠক করেন জাতিসংঘ মহাসচিব। এরপরই কাশ্মীর এবং বর্তমানে ভারত-পাকিস্তানের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন।

গুতেরেস বলেন, কাশ্মীরের বর্তমান পরিস্থিতি এবং নিয়ন্ত্রণরেখায় ঘটে চলা সংঘাত নিয়ে অত্যন্ত উদ্বিগ্ন আমি। শুরু থেকেই এ ব্যাপারে সাহায্য করতে চেয়েছিলাম। দুই দেশ রাজি থাকলে এ নিয়ে মধ্যস্থতা করতে প্রস্তুত আমি।

ভারত-পাকিস্তান দুই দেশেরই আরও সংযত হওয়া উচিত বলেও মন্তব্য করেন গুতেরেস।

এর প্রেক্ষিতে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র রবীশ কুমার বলেন, নিজের অবস্থান থেকে একচুলও সরে আসেনি ভারত। জম্মু-কাশ্মীর চিরকাল ভারতের অখণ্ড অংশ ছিল, আছে এবং থাকবে। গায়ের জোরে, বেআইনি ভাবে পাকিস্তান যে অঞ্চলগুলিকে দখল করে রেখেছে, সেগুলিকে মুক্ত করতে বরং পদক্ষেপ করা হোক।

এ ব্যাপারে কোনও তৃতীয় পক্ষের হস্তক্ষেপ বরদাস্ত করা হবে না বলেও জানান তিনি। বরং কাশ্মীর নিয়ে মাথা ঘামানোর বদলে, পাকিস্তান বেআইনি ভাবে ভারতের যে অঞ্চল দখল করে রেখেছে, জাতিসংঘকে তা মুক্ত করার ব্যবস্থা করতে অনুরোধ করেছে নয়াদিল্লি।

গত বছর অগস্টের শুরুতে জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বিলোপ করে উপত্যকাকে দু’টি পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ভাগ করার সিদ্ধান্ত নেয় ভারত সরকার। শুরু থেকেই এর বিরোধিতা করে আসছে পাকিস্তান। প্রতিবাদ হচ্ছে কাশ্মীরেও। যার প্রেক্ষিতে উপত্যকায় জারি রয়েছে বিশেষ অবস্থা। সেখানকার স্থানীয় নেতাসহ হাজার হাজার যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।