ডেল্টার চেয়ে ৩ গুণ শক্তিশালী ওমিক্রন ৩০ দেশে শনাক্ত

করোনা ভাইরাসের (কোভিড-১৯) নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন অতি সংক্রামক ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টকেও ছাড়িয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। এটি ডেল্টার চাইতে ৩ গুণ বেশি শক্তিশালী।

শুক্রবার (০৩ ডিসেম্বর) প্রকাশিত নতুন তালিকায় ওমিক্রন কমপক্ষে ৩০ দেশে ছড়িয়ে পড়ার কথা বলা হয়েছে। এসব দেশে মোট ৩৭৫ জন এই ভ্যারিয়েন্টে আক্রান্ত হয়েছেন। দু’দিন আগেও ওমিক্রনের সংক্রমণ তালিকায় ছিল ১২টি দেশের নাম।

ইতোমধ্যে প্রতিবেশী দেশ ভারতে শনাক্ত হয়েছে ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট। যুক্তরাষ্ট্রের পাশাপাশি ইউরোপের অধিকাংশ দেশে ঢুকে পড়েছে করোনার বিপজ্জনক নতুন ভ্যারিয়েন্টটি।

ইসিডিসি দাবি করেছে, আফ্রিকা মহাদেশের বতসোয়ানায় প্রথম ওমিক্রন চিহ্নিত হয়েছিল ১১ নভেম্বর। দক্ষিণ আফ্রিকা স্পষ্ট করে জানাতে পারেনি, তাদের দেশে কবে প্রথম ধরা পড়ে ভ্যারিয়েন্টটি। নভেম্বরের শুরু থেকে তারা রোগীদের মধ্যে ভিন্ন উপসর্গ লক্ষ্য করে। করোনা পরীক্ষাতেও ভাইরাসের এস-জিনের অনুপস্থিতি চোখে পড়ে সে দেশের বিজ্ঞানীদের। এর পরে অনুসন্ধান চালিয়ে পাওয়া যায় নতুন ভ্যারিয়েন্ট।

হিন্দুস্তান টাইমসের খবর অনুযায়ী ওমিক্রন ছড়িয়ে পড়া ৩০ দেশ হলো-

ভারত- শনাক্ত ২, দক্ষিণ আফ্রিকা- শনাক্ত ১৮৩, বতসোয়ানা- শনাক্ত ১৯, নেদারল্যান্ডস- শনাক্ত ১৬, হংকং- শনাক্ত ৭, ইসরায়েল- শনাক্ত ২, বেলজিয়াম-শনাক্ত ২, যুক্তরাজ্য- শনাক্ত ৩২, জার্মানি- শনাক্ত ১০, অস্ট্রেলিয়া- শনাক্ত ৪, ইতালি- শনাক্ত ৮, চেকিয়া- শনাক্ত ১, ডেনমার্ক- শনাক্ত ৬, অস্ট্রিয়া- শনাক্ত ৪, কানাডা- শনাক্ত ৭, সুইডেন- শনাক্ত ৪, সুইজারল্যান্ড-শনাক্ত ৩, স্পেন- শনাক্ত ২, পর্তুগাল- শনাক্ত ১৩, জাপান- শনাক্ত ২, ফ্রান্স- শনাক্ত ১, ঘানা- শনাক্ত ৩৩, দক্ষিণ কোরিয়া- শনাক্ত ৩, নাইজেরিয়া- শনাক্ত ৩, ব্রাজিল- শনাক্ত ২, নরওয়ে- শনাক্ত ২, সৌদি আরব- শনাক্ত ১, আয়ারল্যান্ড- শনাক্ত ১, সংযুক্ত আরব আমিরাত- শনাক্ত ১ এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র- শনাক্ত ১ ।