মাঙ্কিপক্স: যুক্তরাষ্ট্রে জরুরি অবস্থা জারি

মাঙ্কিপক্সের প্রাদুর্ভাব ছড়িয়ে পড়ায় যুক্তরাষ্ট্রে জনস্বাস্থ্য বিষয়ক জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) এই জরুরি অবস্থা জারি করা হয়। শুক্রবার (৫ আগস্ট) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে বার্তাসংস্থা রয়টার্স।


প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এই পদক্ষেপের ফলে মাঙ্কিপক্স মোকাবেলায় নতুন তহবিল দেয়া হবে, এই রোগ সম্পর্কে নতুন তথ্য সংগ্রহের পথ খুলে দেবে, একই সঙ্গে এই রোগের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য অতিরিক্ত কর্মী মোতায়েন করার অনুমতি দেবে।


এর আগে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক শহরে মাঙ্কিপক্সের প্রাদুর্ভাব ছড়িয়ে পড়ার কারণে সেখানে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়। নিউইয়র্কের গভর্নর ক্যাথি হকুল সংক্রমণ ঠেকাতে এই জরুরি অবস্থা ঘোষণা দেন।


এদিকে, মাঙ্কিপক্স নিয়ে বিশ্বব্যাপী জরুরি স্বাস্থ্য সতর্কতা জারি করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। শনিবার এ সংক্রান্ত দ্বিতীয় বৈঠক শেষে এ ঘোষণা দেন সংস্থাটির প্রধান তেদরোস আধানোম গেব্রিয়াসুস।


মাঙ্কিপক্স সংক্রমণের পেছনে রয়েছে মাঙ্কিপক্স নামের ভাইরাস। এটি স্মলপক্স ভাইরাস শ্রেণির। করোনা মহামারির প্রাদুর্ভাবের মধ্যেই উত্তর আমেরিকা, ইউরোপসহ বেশ কয়েকটি দেশে মাঙ্কিপক্সের উল্লেখযোগ্যসংখ্যক রোগী শনাক্ত হয়েছে। এখন পর্যন্ত ৭৫ দেশে ১৬ হাজারের বেশি মানুষ এই রোগে আক্রান্ত হয়েছে বলে জানিয়েছেন গেব্রিয়াসুস। তিনি বলেন, মাঙ্কিপক্সের সংক্রমণকে বৈশ্বিক জরুরি স্বাস্থ্য সতর্কতা হিসাবে ঘোষণার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এটি সারা বিশ্বের জন্য উদ্বেগের।


সর্বপ্রথম মাঙ্কিপক্সের ভাইরাস খুঁজে পাওয়া যায় বানরের শরীরে। ১৯৭০ সালে গণতান্ত্রিক প্রজাতন্ত্র কঙ্গোতে যখন গুটিবসন্ত নির্মূলের জোর চেষ্টা চলছে, তখনই মাঙ্কিপক্সের প্রথম রোগী শনাক্ত হয়েছিল। এরপর থেকে মধ্য ও পশ্চিম আফ্রিকার বিভিন্ন দেশ থেকে মানুষের মধ্যে মাঙ্কিপক্স ছড়িয়েছে, যা এখন ছড়িয়ে পড়ছে গোটা বিশ্বে।