জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে অস্ট্রেলিয়ায় বঙ্গবন্ধু পরিষদের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে অস্ট্রেলিয়ায় বঙ্গবন্ধু পরিষদের উদ্যোগে ১৪ আগস্ট, রবিবার সন্ধ্যায় সিডনিতেআলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। বঙ্গবন্ধু পরিষদ, অস্ট্রেলিয়ার সভাপতি আব্দুল জলিলের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক নির্মাল্য তালুকদারের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত এই অলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বাংলাদেশ থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত হন বাংলাদেশ সরকারের গৃহায়ন ও পূর্ত মন্ত্রণালয়েরমাননীয় প্রতিমন্ত্রী জনাব শরীফ আহমেদ এম. পি।


সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অস্ট্রেলিয়াস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের মান্যবর রাষ্ট্রদূত জনাব মোহাম্মদ সুফিউর রহমান, বঙ্গবন্ধু পরিষদ, অস্ট্রেলিয়ার উপদেষ্টা এবং অস্ট্রেলিয়ায় আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা জনাব গামা আব্দুল কাদির এবং অস্ট্রেলিয়া আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ড. আবুল হাসনাৎ মিল্টন।


অনুষ্ঠানের শুরুতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ সকল শহিদদের আত্মার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট দাঁড়িয়ে নীরবতা পালন করা হয়। পবিত্র ধর্মগ্রন্থ কোরআন, গীতা ও বাইবেল থেকে পাঠ করেন যথাক্রমে ঈমাম এম আমেন আহমেদ, নির্মাল্য তালুকদার এবং পল মধু। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ এবং অস্ট্রেলিয়ার জাতীয় সঙ্গীতও পরিবেশন করা হয়।


সভায় উপস্থিত থেকে আরো বক্তব্য রাখেন সিডনিস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের কনসুলেট অফিসের কনসুলেট জেনারেল জনাব শাখাওয়াত হোসেন, ড. খায়রুল চৌধুরী, এমদাদ হক, শফিকুল আলম, ড. নূরুর রহমান খোকন, ডা. লাভলি রহমান, আমজাদ খান, সৈয়দা তাজমীরা আকতার, নেহাল নেয়ামুল বারী, মশিউর রহমান হৃদয়, রথিন্দ্র নাথ ঢালী, নাসরিন মোফাজ্জল, জাকির প্রধানীয়া, নোমান শামীম, অপু সারোয়ার, মহিউদ্দিন কাদের, জাহাঙ্গীর আলম, শাহ আলম, ফাহাদ হোসেন অভিসহ আরো অনেকে। অনুষ্ঠানে কবিতা আবৃত্তি করেন লেখক ও সঙ্গীত শিল্পী শাহানা চৌধুরী।


সভায় বক্তারা তাদের বক্তৃতায় বাঙালির জাতির পিতা, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবনের নানা দিকের উপর আলোকপাত করেন। মুজিবোত্তর রাজনীতির দীর্ঘ উত্থান-পতন শেষে শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্বভার গ্রহণ করেই বাংলাদেশকে বিশ্বের বুকে এক অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বাস্তবায়নের চলমান সংগ্রামে শেখ হাসিনার কোনোবিকল্প নাই। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়ে তুলবার লক্ষ্যেই আমাদের শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে হবে।


সভায় বক্তারা আরো বলেন, বৈশ্বিক অস্থিতিশীল রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক পরিস্থিতিতে, বর্তমানে শেখ হাসিনার বিরূদ্ধেও দেশে-বিদেশে ষড়যন্ত্র চলছে। বঙ্গবন্ধুর অনুসারী হিসেবে দেশে-বিদেশে আমাদের এইসব ষড়যন্ত্র রুখে দিতে হবে। বর্তমান সরকারের অর্জনসমূহ সবার সামনে তুলে ধরতে হবে। স্ব স্ব অবস্থান থেকে বাংলাদেশ এবং অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে অর্থনৈতিক সম্পর্কোন্নয়নে আমাদের কার্যকর ভূমিকা রাখতে হবে। বর্তমান বিশ্বায়নের যুগে প্রবাসে থেকে বাংলাদেশের উন্নয়নে কার্যকর ভূমিকা রাখার মধ্য দিয়ে আমরা বঙ্গবন্ধুর প্রতি সম্মান প্রদর্শন করতে পারি।