নিষেধাজ্ঞা শিথিল করল যুক্তরাষ্ট্র, তেলের বাজারে আসছে ভেনেজুয়েলা

অবশেষে ভেনেজুয়েলার ওপর তেল নিষেধাজ্ঞা শিথিল করেছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটির জনগণকে মানবিক সহায়তা প্রদানে জাতিসংঘ-শাসিত তহবিল তৈরি করতে মাদুরো ও বাইডেন প্রশাসনের মধ্যে একটি বিস্তৃত সামাজিক চুক্তি স্বাক্ষর করার পরে শনিবার কিছু তেল নিষেধাজ্ঞা শিথিল করা হয়।


২৭ নভেম্বর, রবিবার আল-জাজিরার বরাতে এমনটি জানা গেছে। বিশ্বের বৃহত্তম তেল মজুদ রয়েছে এমন ভেনিজুয়েলায় শেভরনের কার্যক্রমের ওপর নিষেধাজ্ঞা শিথিল করা দেশটিকে বিশ্বব্যাপী তেলের বাজারে পুনরায় প্রবেশের দিকে অগ্রসর হতে দেবে।


প্রসঙ্গত , রাশিয়ার ইউক্রেনে আগ্রাসন এবং বৈশ্বিক জ্বালানি সরবরাহের ওপর চাপ সৃষ্টির পর ভেনিজুয়েলার সংকট সমাধানের আন্তর্জাতিক প্রচেষ্টা জোরদার হয়। ভেনেজুয়েলার ওপর ‘নিষেধাজ্ঞা পর্যালোচনা করতে ইচ্ছুক’ বলে কানাডা, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের একটি যৌথ বিবৃতি দিয়েছে। তবে দাবি করেছে যে এটি রাজনৈতিক বন্দীদের মুক্তি দেবে, সংবাদপত্রের স্বাধীনতাকে সম্মান করবে এবং বিচার বিভাগ ও নির্বাচনী সংস্থাগুলোর স্বাধীনতার নিশ্চয়তা দেবে।


মার্কিন সিনেটের বৈদেশিক সম্পর্ক কমিটির শক্তিশালী ডেমোক্র্যাটিক চেয়ারম্যান রবার্ট মেনেনডেজ বলেছেন, বাইডেন প্রশাসনকে ধীরে ধীরে আগানো উচিত। যদি মাদুরো আবার তার অপরাধমূলক একনায়কত্বকে আরও সুসংহত করার জন্য সময় কেনার জন্য এই আলোচনাগুলো ব্যবহার করার চেষ্টা করেন, তবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং আমাদের আন্তর্জাতিক অংশীদারদের অবশ্যই আমাদের নিষেধাজ্ঞাগুলির সম্পূর্ণ শক্তি ফিরিয়ে নিতে হবে— যা তার শাসনকে প্রথম স্থানে আলোচনার টেবিলে নিয়ে এসেছিল।


এদিকে , মার্কিন ট্রেজারি ডিপার্টমেন্ট বলেছে যে চুক্তিটি ভেনেজুয়েলায় গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের সঠিক পথে গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ চিহ্নিত করেছে এবং সেখানে সীমিত তেল উত্তোলন কার্যক্রম পুনরায় শুরু করার জন্য শেভরনকে লাইসেন্স প্রদান করেছে।


ট্রেজারি বিভাগ বলেছে, লাইসেন্সটি ছয় মাসের জন্য কার্যকর থাকবে। মাদুরো সরকার চুক্তিতে করা প্রতিশ্রুতি পূরণ করেছে কিনা তা তখন বাইডেন প্রশাসন মূল্যায়ন করবে।