বিশ্বে করোনায় দৈনিক সংক্রমণ-মৃত্যুতে শীর্ষে জাপান

বিশ্বজুড়ে চলমান করোনা মহামারিতে অব্যাহত আছে দৈনিক সংক্রমণ-মৃত্যু। তবে গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বজুড়ে দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা কমেছে। একই সঙ্গে আগের দিনের তুলনায় কমেছে নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যাও।


গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে করোনা পজিটিভ হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ৩ লাখ ৮ হাজার ৬৮৬ জন এবং কোভিডজনিত অসুস্থতায় ভুগে মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ৪৩৭ জনের। এছাড়া এইদিন করোনা থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২ লাখ ৮০ হাজার ২৩ জন।


শনিবার (১৪ জানুয়ারি) সকালে করোনাভাইরাসে সংক্রমিত, মৃত্যু ও সুস্থতার নিয়মিত আপডেট দেয়া ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।


ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে পাওয়া সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে করোনায় সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে জাপানে। এ সময় দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৪৪ হাজার ৭৭ জন এবং এ রোগে মারা গেছেন ৪৮০ জন।


জাপান ব্যতীত আরও যেসব দেশে এ দিন সংক্রমণ-মৃত্যুর উচ্চহার দেখা গেছে, সেগুলো হলো— যুক্তরাষ্ট্র (মৃত ১৯৩ জন, নতুন আক্রান্ত ১৯ হাজার ৩৯৭ জন), ফ্রান্স (মৃত ১০১ জন, নতুন আক্রান্ত ৬ হাজার ২৩৮ জন), ব্রাজিল (মৃত ৭৯ জন, নতুন আক্রান্ত ২০ হাজার ৫৪৮ জন), স্পেন (মৃত ৭৬ জন, নতুন আক্রান্ত ৯ হাজার ৮৭১ জন) দক্ষিণ কোরিয়া (মৃত ৪৬ জন, নতুন আক্রান্ত ৩৯ হাজার ৪২৬ জন)।


বিশ্বে বর্তমানে সক্রিয় করোনা রোগীর সংখ্যা ২ কোটি ২০ লাখ ৫৩ হাজার ৮৩৬ জন। এই রোগীদের মধ্যে করোনার মৃদু উপসর্গ বহন করছেন ২ কোটি ২০ লাখ ৭ হাজার ৯২৯ জন এবং গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় আছেন ৪৫ হাজার ৯০৭ জন।


আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, মহামারি শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন মোট ৬৭ কোটি ৮ লাখ ১৪ হাজার ৪৯৮ জন এবং এ রোগে মৃত্যু হয়েছে মোট ৬৭ লাখ ২৭ হাজার ৭৪ জনের।


এছাড়া গত প্রায় তিন বছরে করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর সুস্থ হয়ে উঠেছেন মোট ৬৪ কোটি ২০ লাখ ৩৩ হাজার ৫৮০ জন।


উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। এরপর ২০২০ সালের ১১ মার্চ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) করোনাকে ‘বৈশ্বিক মহামারি’ হিসেবে ঘোষণা করে। এর আগে একই বছরের ২০ জানুয়ারি বিশ্বজুড়ে জরুরি পরিস্থিতি ঘোষণা করে সংস্থাটি।