চলন্ত গাড়িতে সিটবেল্ট না বাঁধায় ঋষি সুনাকের জরিমানা

চলন্ত গাড়িতে সিটবেল্ট না বেঁধে সোশ্যাল মিডিয়া ভিডিও করার সময় প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনককে জরিমানা করা হয়েছে। ট্রাফিক আইন না মানায় ৪২ বছর বয়সী ঋষি সুনাকের বিরুদ্ধে শর্ত সাপেক্ষে নির্দিষ্ট শাস্তির ঘোষণা দিয়েছে ল্যাঙ্কাশায়ার পুলিশ।


এদিকে ঋষি সুনাকের সরকারি বাসভবন কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, সুনাকের এটি ভুল ছিল। তিনি তা সম্পূর্ণরূপে স্বীকার করেছেন এবং ক্ষমা চেয়েছেন। তারা আরও বলেছেন,সুনাক অবশ্যই জরিমানা প্রদান করবেন।


সুনাকের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে পোস্ট করা হয়েছিল ঐ ভিডিও। যদিও প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক এ ঘটনার জন্য ক্ষমা চেয়েছেন এবং বলেছেন একটি সোশ্যাল মিডিয়া ক্লিপ বানানোর জন্য সিট বেল্ট খুলে ফেলা ‘সঠিক কাজ’ হয়নি।


দেশটির ট্রাফিক আইনে এজন্য সর্বনিম্ন ১শ' পাউন্ড জরিমানা দিতে হয়। তবে আদালতের মাধ্যমে নিষ্পত্তি হলে তা বেড়ে হয় ৫শ' পাউন্ড।


এ ঘটনায় সুনাকের সমালোচনা করেন বিরোধী লেবার পার্টির নেতারা। দলটির মুখপাত্র এটাও বলেন, কীভাবে সিট বেল্ট বাঁধতে হয়, ডেবিট কার্ড, ট্রেন সার্ভিস ব্যবহার করতে হয়, কীভাবে অর্থনীতি ও দেশ পরিচালনা করতে হয়, তা সুনাক জানেনই না। এ ধরনের ঘটনার তালিকা আরও দীর্ঘ হচ্ছে। ভিডিওটি যখন শুট করা হয়েছিল তখন প্রধানমন্ত্রী ল্যাঙ্কাশায়ারে ছিলেন। ইংল্যান্ডের উত্তরে ভ্রমণ করছিলেন তিনি।


এর আগে করোনা বিধিনিষেধ না মানায়, তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের সঙ্গে জরিমানা গুনেছিলেন ঋষি সুনাক। সূত্র: বিবিসি